ছবি সংগৃহীত

স্যামসাংয়ের ওয়াশিং মেশিন বিস্ফোরণের অভিযোগ

(প্রিয় টেক) গ্যালাক্সি নোট ৭ বিস্ফোরণের পর স্যামসাংয়ের ওয়াশিং মেশিনও বিস্ফোরিত হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। সম্প্রতি স্যামসাংয়ের বিরুদ্ধে ওয়াশিং মেশিন বিস্ফোরণের দায়ে মামলা করা হয়। মামলার পর মার্কিন কনজ্যুমার ওয়াচডগের কাছে কিছু ওয়াশিং মেশিনের কারিগরি ত্রুটির কথা স্বীকার করেছে স্যামসাং। সম্প্রতি এক মা

প্রিয় টেক
লেখক
প্রকাশিত: ২৯ সেপ্টেম্বর ২০১৬, ১৪:৩০ আপডেট: ১২ মে ২০১৮, ০০:৩৩
প্রকাশিত: ২৯ সেপ্টেম্বর ২০১৬, ১৪:৩০ আপডেট: ১২ মে ২০১৮, ০০:৩৩


ছবি সংগৃহীত

 

(প্রিয় টেক) গ্যালাক্সি নোট ৭ বিস্ফোরণের পর স্যামসাংয়ের ওয়াশিং মেশিনও বিস্ফোরিত হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। সম্প্রতি স্যামসাংয়ের বিরুদ্ধে ওয়াশিং মেশিন বিস্ফোরণের দায়ে মামলা করা হয়। মামলার পর মার্কিন কনজ্যুমার ওয়াচডগের কাছে কিছু ওয়াশিং মেশিনের কারিগরি ত্রুটির কথা স্বীকার করেছে স্যামসাং। 

সম্প্রতি এক মার্কিন আইন ফার্ম দক্ষিণ কোরিয় প্রযুক্তি পণ্য নির্মাতা প্রতিষ্ঠানটির বিরুদ্ধে মামলা করে। তাদের অভিযোগ এ ধরণের ঝুঁকিপূর্ণ ওয়াশিং মেশিন বিস্ফোরিত হলে মানুষ আহত হতে পারে। তবে উত্তর আমেরিকার বাইরে বিক্রি হওয়া মডেলগুলোতে এ ধরণের কোন সমস্যা নেই বলে জানিয়েছে স্যামসাংয়ের এক মুখপাত্র। বিস্ফোরণের অভিযোগ প্রমাণিত হলে বিশ্বব্যাপী গ্যালাক্সি নোট ৭ ফিরিয়ে নেওয়ার ঘোষণা দেওয়ার পর পরই ওয়াশিং মেশিন নিয়ে এ ধরণের কেলেঙ্কারি হলো।

স্যামসাং এবং মার্কিন কনজ্যুমার প্রোডাক্ট সেফটি কমিশন জানিয়েছে, ২০১১ সালের মার্চ থেকে ২০১৬ সালের এপ্রিল মাস পর্যন্ত বাজারজাত হওয়া টপ-লোডিং ওয়াশিং মেশিনগুলোতে এ ধরণের সমস্যা আছে। স্যামসাং জানায়, ‘খুব কম ক্ষেত্রে এসব সমস্যাগ্রস্ত ইউনিটগুলো অস্বাভাবিকভাবে ভাইব্রেশন করতে পারে। বিছানাপত্র, বড় বস্তু বা পানি-নিরোধী জিনিসপত্র ওয়াশ করার সময় তাই আহত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।’ স্যামসাং কনজ্যুমারদের সমস্যাযুক্ত এসব ইউনিটগুলোতে উপরিল্লিখিত বস্তুগুলো ওয়াশ করার সময় লোওয়ার-স্পিড ডেলিকেট সাইকেল ব্যবহার করতে বলেছে। স্যামসাং মডেলগুলোর নাম উল্লেখ করেনি। তবে কাস্টমারদের সিরিয়াল নম্বর ব্যবহার করে তাদের ওয়াশিং মেশিন সমস্যাগ্রস্ত কিনা তা নিশ্চিত হতে বলেছে। যুক্তরাষ্ট্রের কয়েকটি বাসায় ওয়াশিং মেশিন বিস্ফোরণের অভিযোগের দায়ে প্রতিষ্ঠানটি একটি মার্কিন আইন ফার্ম থেকে মামলা খেয়েছে।

সূত্র: বিবিসি