বৈমানিক অভিনন্দনকে গ্রহণ করতে ভারতীয়দের অপেক্ষা। ইনসেটে পাইলট অভিনন্দন বর্তমান। ছবি: সংগৃহীত

ভারতের কাছে অভিনন্দনকে হস্তান্তর

পাক রেঞ্জার্স-এর ‘বিটিং দ্য রিট্রিট’-এর পরই ভারতের হাতে তুলে দেওয়া হয় অভিনন্দনকে।

প্রিয় ডেস্ক
ডেস্ক রিপোর্ট
প্রকাশিত: ০১ মার্চ ২০১৯, ১৯:০৩ আপডেট: ০১ মার্চ ২০১৯, ১৯:৩৮
প্রকাশিত: ০১ মার্চ ২০১৯, ১৯:০৩ আপডেট: ০১ মার্চ ২০১৯, ১৯:৩৮


বৈমানিক অভিনন্দনকে গ্রহণ করতে ভারতীয়দের অপেক্ষা। ইনসেটে পাইলট অভিনন্দন বর্তমান। ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) উইং কমান্ডার অভিনন্দন বর্তমানকে পাক রেঞ্জার্স-এর ‘বিটিং দ্য রিট্রিট’-এর পরই ভারতের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে।

১ মার্চ, শুক্রবার বিকেল সাড়ে ৪টা নাগাদ পাক সেনাদের একটি কনভয়ে ওয়াঘা সীমান্তে নিয়ে আসা হয় অভিনন্দনকে। তখন ভারতের স্থানীয় সময় বিকেল ৫.৪৫। সেখানে তার এক প্রস্থ মেডিক্যাল চেকআপ হয়। পরে তাকে হস্তান্তর করা হয় ভারতের হাতে।

এদিন সকালে অভিনন্দনকে প্রথমে ইসলামাবাদ থেকে লাহোরে সড়কপথে নিয়ে আসা হয়। সেখান থেকে বিকেল সাড়ে ৪টা নাগাদ নিয়ে আসা হয় ওয়াঘা-আতারি সীমান্তে। তাকে স্বাগত জানাতে বিকেলেই হাজির হন সেনা ও এয়ারফোর্সের শীর্ষ কর্মকর্তারা। তাকে স্বাগত জানাতে এয়ার ভাইস মার্শাল আর জি কে কপুর হাজির হয়েছেন। এদিন সকালেই সীমান্তে পৌঁছে যান অভিনন্দনের বাবা এয়ার মার্শাল এস বর্তমান এবং মা শোভা বর্তমান।

অভিনন্দনকে অভিনন্দন জানাতে সকাল থেকে ওয়াঘা-আতারি সীমান্তে হাজির হয়েছেন কয়েকশ মানুষ। ‘ভারত মাতা কি জয়’, ‘বন্দে মাতরম’ ধ্বনিতে মুখরিত হয়ে উঠেছে সীমান্ত এলাকা। সবাই অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছেন সীমান্তের এপারে কখন আসবেন অভিনন্দন।

এদিকে পাকিস্তানের সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া একটি সাক্ষাৎকারে পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মাহমুদ কুরেশি বলেছেন, ‘পাকিস্তানে ভেঙে পড়েছিল পাইলট অভিনন্দনের বিমানটি ৷ তারপর পাকিস্তানের সেনাবাহিনী আটক করেছিল তাকে ৷ এরপর আমাদের তরফ থেকে অভিনন্দনের বাড়িতে বার্তা পাঠানো হয় ৷ আমরা অভিনন্দনের মা-বাবাকে জানিয়েছিলাম, দুশ্চিন্তা করবেন না। আপনার ছেলে সুরক্ষিত হাতেই রয়েছে। ওর কোনো ক্ষতি হবে না। সুস্থ আছে অভিনন্দন।’

গত মঙ্গলবার ভারতীয় বিমান বাহিনী পাকিস্তানের আকাশসীমায় ঢুকে বিমান থেকে বোমাবর্ষণ করে। পরদিন বুধবার সকালে দুটি ভারতীয় যুদ্ধবিমান ভূপাতিত ও এক পাইলটকে আটক করে পাকিস্তান। পাল্টাপাল্টি হামলায় দুই দেশের মধ্যে উত্তেজনা বৃদ্ধির প্রেক্ষাপটে গতকাল বৃহস্পতিবার পাকিস্তানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক মুখপাত্র বার্তা সংস্থা এএফপিকে বলেন, ‘উত্তেজনা নিরসনে ভূমিকা রাখলে আমরা ভারতীয় পাইলটকে হস্তান্তর করতে প্রস্তুত।’ এরপর পাকিস্তান ঘোষণা দেয় যে শান্তির নিদর্শন হিসেবে তাকে মুক্তি দেওয়া হবে।’

সূত্র: আনন্দবাজার পত্রিকা

প্রিয় সংবাদ/আজাদ চৌধুরী