বাংলাদেশে অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকা ভ্যাকসিন তৈরির জন্য আলোচনা করছে সেরাম ইনস্টিটিউট

অক্সফোর্ড ভ্যাকসিন বাংলাদেশে তৈরি করতে সেরাম-বেক্সিমকোর আলোচনা

ভারতের অভ্যন্তরীণ চাহিদা ও বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ভ্যাকসিন সরবরাহের প্রতিশ্রুতি পূরণে আপ্রাণ চেষ্টা করছে সেরাম ইনস্টিটিউট।

প্রিয় ডেস্ক
ডেস্ক রিপোর্ট
প্রকাশিত: ০৪ মে ২০২১, ১৪:৪৭ আপডেট: ০৪ মে ২০২১, ১৫:০৫
প্রকাশিত: ০৪ মে ২০২১, ১৪:৪৭ আপডেট: ০৪ মে ২০২১, ১৫:০৫


বাংলাদেশে অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকা ভ্যাকসিন তৈরির জন্য আলোচনা করছে সেরাম ইনস্টিটিউট

অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় এবং অ্যাস্ট্রাজেনেকা সংস্থার গবেষণালব্ধ করোনার টিকা তৈরি করছে পুনের সেরাম ইনস্টিটিউট। কিন্তু ভ্যাকসিনের চাহিদা যে হারে বৃদ্ধি পেয়েছে, সেই হারে তা উৎপাদন করতে পারছে না প্রতিষ্ঠানটি। ফলে এই টিকা বিদেশে রপ্তানির কথা থাকলেও এখন তা বন্ধ রয়েছে, কারণ ভারতেই ঠিকমতো যোগান দিতে পারছে না সেরাম। সেই প্রেক্ষিতে ভ্যাকসিন উৎপাদনের জন্য বাংলাদেশের বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালসের সঙ্গে যোগাযোগ করেছে প্রতিষ্ঠানটি।

বেক্সিমকো-সেরাম: অক্সফোর্ড ভ্যাকসিন দেশে তৈরির আলোচনা—দ্য ডেইলি স্টার (৪ মে ২০২১): বাংলাদেশে অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকা ভ্যাকসিন তৈরির বিষয়ে বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালসের সঙ্গে আলোচনা করছে ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউট।

ভারতের অভ্যন্তরীণ চাহিদা ও বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ভ্যাকসিন সরবরাহের প্রতিশ্রুতি পূরণে আপ্রাণ চেষ্টা করছে সেরাম ইনস্টিটিউট। যার ফলশ্রুতিতে তারা উৎপাদন বাড়াতে বাংলাদেশি এজেন্ট বেক্সিমকো ফার্মার সঙ্গে আলোচনা শুরু করেছে।

বেক্সিমকোর ব্যবস্থাপনা পরিচালক নাফোজমুল হাসান পাপন জানিয়েছেন, সেরামের কাছে বেক্সিমকো জানতে চেয়েছে যে, দেশে কী পরিমাণ ভ্যাকসিন ডোজ উৎপাদন করা সম্ভব হবে এবং সেগুলো কোথায় সরবরাহ করা হবে।

ব্রিটেনে টিকা তৈরি করবে সেরাম, ২৪ কোটি পাউন্ড বিনিয়োগ পুনাওয়ালার—ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস (৪ মে ২০২১): জল্পনার অবসান, ভারতের গণ্ডি পেরিয়ে এবার বিলেতে টিকা তৈরির সিদ্ধান্ত নিল সেরাম ইনস্টিটিউট। একথা জানিয়েছেন সংস্থার সিইও আদার পুনাওয়ালা। ব্রিটেনে চিকিৎসা সংক্রান্ত বিভিন্ন গবেষণার ক্ষেত্রে ৩৩.৪০ কোটি মার্কিন ডলার বিনিয়োগ করবে তাঁর সংস্থা। এ বিষয়ে নিশ্চিত করেছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন।

লন্ডনে প্রধানমন্ত্রীর ডাউনিং স্ট্রিটের কার্যালয় থেকে সোমবার একটি বিবৃতিতে জানানো হয়, ২৪ কোটি পাউন্ড বিনিয়োগ করবে সেরাম। যা প্রায় ৩৩ কোটি ৪০ লক্ষ মার্কিন ডলার। এই বিপুল বিনিয়োগের মাধ্যমে ব্রিটেনে টিকা তৈরির জন্য গবেষণা, চিকিৎসা সংক্রান্ত বিষয়ে সাহায্য করবে সেরাম। এই মুহূর্তে বিশ্বের বৃহত্তম টিকা উৎপাদনকারী সংস্থা পুণের সেরাম ইনস্টিটিউট। ব্রিটিশ ওষুধ প্রস্তুতকারী সংস্থা অ্যাস্ট্রাজেনেকার সঙ্গে যৌথ উদ্যোগে করোনার টিকা কোভিশিল্ড উৎপাদন করছে সেরাম।

ভারতের বাইরেও টিকা উৎপাদন করবে সেরাম ইনস্টিউট—বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম (১ মে ২০২১): করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউয়ে সরবরাহের প্রতিশ্রুতি রক্ষায় ভারতের বাইরেও অ্যাস্ট্রাজেনেকার কোভিড- ১৯ টিকা তৈরির পরিকল্পনা করছে সেরাম ইনস্টিটিউট অব ইন্ডিয়া।

বার্তাসংস্থা রয়টার্স জানায়, শুক্রবার ব্রিটিশ দৈনিক দ্য টাইমসে প্রকাশিত সাক্ষাৎকারে প্রতিষ্ঠানটির প্রধান নির্বাহী আদর পুনওয়ালা এ তথ্য জানিয়েছেন। তিনি বলেন, “আগামী কয়েক দিনের মধ্যেই একটি ঘোষণা আসবে।”

গত সপ্তাহে পুনওয়ালা জানিয়েছিলেন, জুলাইয়ের মধ্যে সেরাম ইনস্টিটিউট তাদের উৎপাদন মাসে ১০ কোটি ডোজে উন্নীত করতে পারবে। এর আগে উৎপাদন বাড়াতে মে মাসের শেষ সপ্তাহ পর্যন্ত একটি সময়সীমা জানানো হয়েছিল।

“ক্ষমতাশালীরা হুমকি দিচ্ছে, এখন দেশে ফিরতে পারব না”, ব্রিটিশ দৈনিককে বললেন সেরাম কর্তা—ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস (২ মে ২০২১): ভারত তথা বিশ্বের অন্যতম বৃহত্তম ভ্যাকসিন প্রস্তুতকারী সংস্থা সেরাম ইনস্টিটিউট। পুণের এই সংস্থার সিইও আদার পুণাওয়ালা এই মুহূর্তে দেশের সবচেয়ে আলোচিত ব্যক্তি। কিন্তু কোভিশিল্ড উৎপাদন যেন তাঁর গলার কাঁটা হয়ে গিয়েছে এখন। ব্রিটিশ একটি দৈনিক সংবাদপত্রকে সাক্ষাৎকারে তিনি বলেছেন, কিছু প্রভাবশালী রাজনীতিবিদের তরফ থেকে হুমকি পাচ্ছেন তিনি। দ্রুত ভ্যাকসিন সরবরাহের জন্য চাপ দেওয়া হচ্ছে। পুনাওয়ালার এই অভিযোগে দেশজুড়ে শোরগোল পড়ে গিয়েছে।

কয়েকদিন আগেই ব্রিটেনে চলে গিয়েছেন পুনাওয়ালা। সেখানে বসেই ব্রিটিশ দৈনিক সংবাদপত্রের কাছে তিনি দাবি করেছেন, ব্রিটেনে ভ্যাকসিন প্রস্তুতের লক্ষ্য রয়েছে, এই খবর ভিত্তিহীন। তিনি বলেছেন, লাগাতার হুমকি দেওয়া হয়েছে। দ্য টাইমসকে তিনি বলেছেন, দিল্লির কিছু প্রভাবশালী নেতা তাঁকে চাপ দিচ্ছেন। সরকারের সদস্য়ও রয়েছে এই হুমকি দেওয়ার তালিকায়। এমনকী বেশ কিছু মুখ্যমন্ত্রী, শিল্পপতিও রয়েছেন।

আপাতত টিকা রপ্তানি নয়, চিঠি ভারতের—প্রথম আলো (২৫ এপ্রিল ২০২১): ভারতের কাছ থেকে চুক্তি অনুযায়ী করোনার টিকার পরের চালান কবে আসবে, সেই নিশ্চয়তা পাচ্ছে না বাংলাদেশ। বাংলাদেশের অনুরোধের জবাবে ভারত ২৪ এপ্রিল যে কূটনীতিক পত্র পাঠিয়েছে, তাতেও সেই অনিশ্চয়তা দূর হয়নি। বরং ভারত বাংলাদেশকে টিকা রপ্তানি আপাতত স্থগিত করারই ইঙ্গিত দিয়েছে।

দেশ জুড়ে টিকার সঙ্কট, দ্রুত প্রতিষেধক পেতে দুই সংস্থাকে ৪,৫০০ কোটির ঋণ কেন্দ্রের—আনন্দবাজার (১৯ এপ্রিল ২০২১): করোনা টিকার উৎপাদন প্রক্রিয়ায় গতি আনতে সেরাম ইনস্টিটিউট ও ভারত বায়োটেককে ৪ হাজার ৫০০ কোটি টাকার ঋণ দেওয়ার সিদ্ধান্তে ছাড়পত্র দিয়েছে কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রক। বলা হয়েছে, করোনা পরিস্থিতি সামলানোর দায়িত্বে থাকা কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর মাধ্যমে এই ঋণের অর্থ পৌঁছে দেওয়া হবে দুই সংস্থাকে। করোনার দ্বিতীয় ঢেউ যখন আছড়ে পড়েছে, অন্য দিকে তখনই দেশে টিকার সঙ্কট চিন্তা বাড়িয়েছে। একাধিক রাজ্যের তরফে কেন্দ্রকে বলা হয়েছে, টিকা না পাওয়ায় বন্ধ রাখতে হয়েছে বহু টিকাকরণ কেন্দ্র। সেই সময়ে এই ঋণ টিকার উৎপাদন বৃদ্ধি করতে অনেকটাই সাহায্য করবে বলে মনে করা হচ্ছে।