উলুমুল কোরান

পবিত্র কুরআন সম্পর্কিত গুরুত্বপূর্ণ কিছু তথ্য

স্বয়ং আল্লাহ তাআলাই এই কিতাবের হিফাজতের দায়িত্ব গ্রহণ করেছেন। তাই এতে কোনো প্রকার পরিবর্তন, পরিবর্ধন ও পরিমার্জনের কোনো অবকাশ নেই।

মিরাজ রহমান ১৮ মে ২০১৭, ১৩:৪৫

পবিত্র কোরআনে কোন নবীর নাম কতবার আলোচিত হয়েছে?

পবিত্র কোরআনে ২৫ জন নবী-রাসূলদের নাম আলোচিত হয়েছে। আবার কেউ কেউ বলেছেন পবিত্র কোআরনের মোট ২৬ জন নবী-রাসুলের নাম উল্লেখ রয়েছে। কোন নবীর নাম পবিত্র কোরআনে কতবার উল্লেখ হয়েছে?

মিরাজ রহমান ২৬ ডিসেম্বর ২০১৬, ১০:৩২

পবিত্র কোরআন সংকলনের ইতিহাস

পবিত্র কোরআন সংরক্ষণ করার দায়িত্ব, মহান রাব্বুল আলামিন তার নিজ জিম্মায় রেখেছেন। এই মর্মে তিনি ইরশাদ করেছেন- আমিই নাজিল করেছি কোরআনকে এবং আমিই তার সংরক্ষণকারী।

মিরাজ রহমান ১৮ ডিসেম্বর ২০১৬, ০৬:১২

নাসখ লিপিতে লেখা পবিত্র কোরআনের চমৎকার একটি পান্ডুলিপি

লিখেছেন পীর মুহাম্মদ বিন শুকরুল্লাহ। তিনি তুরস্কের অধিবাসি ছিলেন। এর বিশেষ বৈশিষ্ট হচ্ছে এর লেখক প্রসিদ্ধ লিপিকার হামদুল্লাহ আল আমাসির লিপি ও পদ্দতির অনুস্মরণ করতেন। এর সাইজ (২৮X১৭ সেঃ মিঃ)

মহিউদ্দীন ফারুকী ০৬ অক্টোবর ২০১৬, ০০:৫৮

১৫৪ কেজি ওজনের পবিত্র কোরআনের সর্ববৃহৎ পাণ্ডুলিপি

প্রতিটি পৃষ্ঠায় সুন্দর ডিজাইনের বর্ডার করা হয়েছে। কোরানে করীমটি ভারত উপমহাদেশ থেকে পালাক্রমে চারটি উটের মাধ্যমে মদিনা মুনাওয়ারায় হাদিয়া হিসেবে পাঠানো হয়েছে।

মহিউদ্দীন ফারুকী ০৪ অক্টোবর ২০১৬, ০১:১৬

মদিনা মুনাওয়ারার কোরআন প্রদর্শনীর দ্বিতীয় বৃহত্তম কোরআন

আয়াত, হিজব, পারার চিহ্ন দেয়া হয়েছে বৃত্তের মাঝে সুন্দর ডিজাইন করে। প্রত্যেক সুরার শুরুটা লেখা হয়েছে স্বর্ণ দিয়ে। মুসহাফটি দেখতে খুবই আকর্ষনীয় ও সুন্দর।

মহিউদ্দীন ফারুকী ০২ অক্টোবর ২০১৬, ০৩:১৯

মুহাক্কাক লিপিতে স্বর্ণের কালিকে লেখা কোরআনের পাণ্ডুলিপি

এই কোরআনে কারীমটি ৭২৮ বছর পূর্বে ৭১০ হিজরী মোতাবেক ১৩১০ খ্রীষ্টাব্দে মুহাক্কাক লিপিতে লেখা হয়েছে। লিখেছেন আব্দুল্লাহ বিন মুহাম্মদ হামদানী। এই কোরানটির বিশেষ বৈশিষ্ট হচ্ছে, এটি সম্পূর্ন লেখা হয়েছে স্বর্নের কালি দিয়ে। লেখাগুলো অনেক বড় হরফে। সেজন্য এর সাইজও অনেক বড়ঃ (৩৫X৪০ সেঃ মিঃ)। তথ্য, ছবি ও

মহিউদ্দীন ফারুকী ০১ অক্টোবর ২০১৬, ০৩:১৯

নাসখ লিপিতে লেখা পবিত্র কোরআনের বিশেষ পাণ্ডুলিপি

অত্যন্ত আশ্চর্যের বিষয় যে কায়েস যাদাহ তার নিজ হাতে ১০৬ টি কোরআনে কারীম লিখেছেন। অর্থাৎ সম্পূর্ন জীবনটা কোরআনে কারীম লেখায় কাটিয়ে দিয়েছেন। আল্লাহ তাআলা তার আমলকে এতটা কবুল করেছেন যে তিনি ১০৭ তম কোরআন লেখার সময় যখন তিনি সুরায়ে ইউসুফের আয়াত লেখাকালীন ইন্তেকাল করেছেন।

মহিউদ্দীন ফারুকী ২৯ সেপ্টেম্বর ২০১৬, ০২:৪৭

প্রতি পৃষ্ঠার প্রথম ও শেষ লাইন স্বর্ণ খচিত মুহাক্কাক লিপির পাণ্ডুলিপি

এই কোরানে কারীমটি খাদিজা ফেরদাউস নামক এক মহিলা ওয়াকফ করেছেন। তবে এর লেখার সময়কাল এবং লেখকের ব্যাপারে কোন তথ্য এর শুরুতেও লেখা নেই, এবং প্রদর্শনী কর্তৃপক্ষের নিকটও নেই।

মহিউদ্দীন ফারুকী ২৮ সেপ্টেম্বর ২০১৬, ০২:২৫

নাসখ লিপিতে লেখা ক্যালিগ্রাফিময় কোরআন

এমনকি পরিবর্তি সময়েও তাকে লেখকদের ইমাম গণ্য করা হতো। তিনি ৯২৬ হিজরী মোতাবেক ১৫২০ খ্রীস্টাব্দে ইন্তেকাল করেন। দুটি কোরআনই লেখা হয়েছে নাসখ লিপিতে।

মহিউদ্দীন ফারুকী ২৭ সেপ্টেম্বর ২০১৬, ০২:৫৭

loading ...