Dhaka, Wed, 2 Sep 2015, 8:18 am | লগ-ইন করুন | নিবন্ধন করুন   | English News   |   Search

মতামত

একটু নিঃশ্বাস নেব, প্লিজ...

শেগুফতা শারমিন: এখনকার মাঠবিহীন শহরের ছেলেমেয়েরা প্রেমে পড়তে আড়াল খোঁজে। খোঁজে চারদেয়াল। কুঠুরি না মিললে অগত্যা রেস্টুরেন্টের আলো আঁধারি। সেই সময়ের শিশুরা উল্টেপাল্টে দৌড়ে বেড়াতো সেই এক খন্ড খোলা প্রান্তরে। এখনকার শিশুরা খেলার জায়গা মানে বোঝে রেস্টুরেন্টের এক কোণে রঙিন প্লাস্টিক বল দিয়ে সাজানো প্লে জোন নামের পরিহাস।

শেষ পর্যন্ত আমরা মাশরাফির বিশ্বাস নিয়েও খেললাম!

অনুপম হোসেন পূর্ণমঃ ‘মাশরাফির আড্ডার একটা অলিখিত সংবিধান আছে, তার আড্ডার বিষয়বস্তু থেকে কখনো নিউজ করা যাবে না!’ এটা সবাই মেনে চলেন। আমিও দাদার সাবধানবাণী অক্ষরে অক্ষরে মেনে চলেছি। দেবুদা আর আমি এখনো বিশাল একটা বোমা পেটে চেপে রেখে ঘুরে বেড়াচ্ছি!

ইট’স ইকোনমি স্টুপিড!

বখতিয়ার আহমেদ: তারেকের গল্প গবেষক হিসেবে আমাকে চমকে দিয়েছিল। কারণ যে সিদ্ধান্তগুলো ঢাকায় বসে রাষ্ট্রের হর্তাকর্তারা অবলীলায় নিয়ে ফেলেন সেগুলো যে দেশের এই অদৃশ্য প্রান্তের অদৃশ্য মানুষগুলোর জীবন, তারেকের মত কত জনের জীবন তছনছ করে দিতে পারে, তার আচমকা সাক্ষী বনে যাওয়াটা সহজ নয়। স্বল্প-পূঁজি নিয়ে বাকি দেয়ার পাকে-চক্রে তারেক আসলে ক্রমাগত সর্বস্বান্ত হতে চলেছেন বিদ্যুতের দাম বাড়ার সমান্তরাল গতিতে।

আরাকান আর্মি সমাচার

গোলাম মোর্তোজা: স্থায়ীভাবে আরাকান আর্মি বা বিচ্ছিন্নতাবাদী নানা গ্রুপের তৎপরতা মুক্ত থাকার জন্যে পার্বত্য চট্টগ্রাম চুক্তি বাস্তবায়ন করে পাহাড়িদের আস্থা অর্জন করা দরকার। চুক্তির বাস্তবায়ন না হওয়ায় পাহাড়িদের মধ্যে অসন্তোষ তৈরি হয়েছে। আশঙ্কার কথা আরাকান আর্মির মতো শক্তিশালী গ্রুপের সঙ্গে যদি পাহাড়িদের কোনো গ্রুপের সম্পৃক্ততা তৈরি হয়ে যায়, তবে আমাদের জন্যে তা নতুন করে বিপদের কারণ হতে পারে।